Anudhyan Mass Communication and Journalism
University of Rajshahi
A practice news portal of Department of Mass Communication & Journalism of University of Rajshahi
শিরোনাম
পরীক্ষার সাত মাস পরেও ফল প্রকাশ না হওয়ার প্রতিবাদে অবস্থান কর্মসূচি পালন করেছে রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয় গণযোগাযোগ ও সাংবাদিকতা বিভাগের শিক্ষার্থীরা।গণযোগাযোগ ও সাংবাদিকতা বিভাগের শিক্ষাক্রম বিষয়ে আলোচনারাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের একাডেমিক নিউজলেটার বিদ্যাবার্তা’র দ্বিতীয় সংখ্যা প্রকাশিত হয়েছেতিস্তা নদীতে খনন ও বাঁধ নির্মাণের দাবি জানিয়েছে রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ে অধ্যয়নরত রংপুর বিভাগের শিক্ষার্থীরারাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের ২০১৯-২০ শিক্ষাবর্ষে স্নাতক (সম্মান) প্রথম বষের্র ভর্তি-পরীক্ষা আগামী ২০-২২ অক্টোবর অনুষ্ঠিত হবে

পরীক্ষার ফল দ্রুত প্রকাশের দাবিতে অবস্থান কর্মসূচি

অনুধ্যান

প্রকাশিত : ০৭:৪৬ পিএম, ৩১ জুলাই ২০১৯ বুধবার

পরীক্ষার সাত মাস পরেও ফল প্রকাশ না হওয়ার প্রতিবাদে শিক্ষার্থীদের অবস্থান কর্মসূচি। ছবি: ইয়াজিম পলাশ

পরীক্ষার সাত মাস পরেও ফল প্রকাশ না হওয়ার প্রতিবাদে শিক্ষার্থীদের অবস্থান কর্মসূচি। ছবি: ইয়াজিম পলাশ

আলী ইউনুস হৃদয় : পরীক্ষার সাত মাস পরেও ফল প্রকাশ না হওয়ার প্রতিবাদে  অবস্থান কর্মসূচি পালন করেছে রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয় গণযোগাযোগ ও সাংবাদিকতা বিভাগের শিক্ষার্থীরা। আজ সকাল ১০টা থেকে দুপুর ২টা পর্যন্ত বিভাগীয় সভাপতির কক্ষের সামনে শিক্ষার্থীরা অবস্থান নেন। এসময় চূড়ান্ত পরীক্ষার ফল দ্রুত প্রকাশের দাবি জানিয়ে সব বর্ষের শিক্ষার্থীরা স্লোগান দেন।

 শিক্ষার্থীদের সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে, গত বছরের নভেম্বরে বিভাগটির ¯স্নাতক শ্রেণির চারটি বর্ষের পরীক্ষা শুরু হয়। চতুর্থ বর্ষ ছাড়া সবগুলো বর্ষের পরীক্ষাই শেষ হয় ডিসেম্বরে। চতুর্থ বর্ষের  পরীক্ষা শেষ হয় ২৪ জানুয়ারি। গত ১৭ জুলাই প্রথম বর্ষের ফল প্রকাশ হলেও এখন পর্যন্ত অন্যান্য বর্ষের ফল প্রকাশ হয় নি। যদিও বিশ্ববিদ্যালয়ের বিদ্যমান বিধিনুযায়ী পরীক্ষা শেষ হওয়ার ৬০ দিনের মধ্যে ফল প্রকাশের কথা।

 অস্বাভাবিক বিলম্ব না করে দ্রুত ফল প্রকাশের দাবিতে বেশ কিছু দিন থেকেই শিক্ষার্থীরা সভাপতিসহ শিক্ষকদের কাছে দাবি জানিয়ে আসছিলেন। কয়েক জন শিক্ষার্থী জানান, মাত্রাতিরিক্ত বিলম্বের অবসান ঘটিয়ে খুব দ্রুত ফল প্রকাশ না করলে কঠোর আন্দোলন কর্মসূচি পালন করা হবে ̶  এমন ঘোষণাও তাঁরা বিভাগীয় সভাপতিকে জানিয়েছিলেন। এরই ধারাবাহিকতায় আজ বেলা ১০টায় শিক্ষার্থীরা বিভাগের সভাপতির সঙ্গে ফল প্রকাশের বিষয়ে কথা বলেন। কিন্তু আশানুরূপ আশ্বাস না পাওয়ায় বিভাগের কার্যালয়ের সামনে বিভাগের দেড় শতাধিক শিক্ষার্থী অবস্থান কর্মসূচি শুরু করেন।

 আন্দোলনরত শিক্ষার্থীরা বলেন, সাত মাস পেরিয়ে গেছে। কিন্তু এখনও ফল প্রকাশ হয় নি। তাই চাকুরির পরীক্ষায় আমরা আবেদন করতে পারছি না। বাড়ি থেকে বাবা-মা জানতে চায়  ̶   কবে রেজাল্ট হবে, কবে চাকুরি করবো? আমরা তাদেরকে কোনো জবাব দিতে পারি না। তারা বলেন, বিভাগের সান্ধ্যকোর্সের ফল প্রকাশ করতে এক মাসও সময় লাগে না, তাহলে আমাদের সঙ্গে ব্যতিক্রম কেন? এ সময় শিক্ষার্থীরা ফল প্রকাশের দাবিতে ‘রেজাল্ট প্রকাশে সান্ধ্য কোর্সে এক মাস, আমাদের আর কয় মাস?‘ স্লোগানসহ বিভিন্ন স্লোগান দিতে থাকেন।

 এদিকে শিক্ষার্থীদের আন্দোলন ও জোর দাবির পরিপ্রেক্ষিতে বিভাগের সভাপতি  একাডেমিক কমিটির জরুরি-সভা আহবান করেন। বেলা ১১টা ৩০ মিনিটে সভা শুরু হয়। জরুরি-সভা শেষে শিক্ষকরা  দুপুর ১টায় ভারপ্রাপ্ত উপাচার্য অধ্যাপক চৌধুরী মো. জাকারিয়ার সঙ্গে কথা বলতে যান। সেখান থেকে ফিরে এসে বিভাগের সভাপতি অধ্যাপক আ-আল মামুন অবস্থান কর্মসূচি পালনরত শিক্ষার্থীদের উদ্দেশে বলেন, ‘যেসব শিক্ষক এখনো নম্বরপত্র জমা দেন নি, তাঁরা যাতে আগামী ২৪ ঘণ্টার মধ্যে নম্বরপত্র জমা দেন সেবিষয়ে উদ্যোগ নেওয়ার জন্য ভারপ্রাপ্ত উপাচার্য অধ্যাপক চৌধুরী মো. জাকারিয়াকে অনুরোধ করেছি। নম্বর পেলেই আমরা ফল তৈরির কাজ শুরু করে দেবো এবং আশা করছি দ্রুত ফল প্রকাশ করতে পারবো।‘ তাঁর এই আশ্বাসে শিক্ষার্থীরা অবস্থান কর্মসূচি স্থগিত করলেও ফল না পাওয়া পর্যন্ত ক্লাস-পরীক্ষা বর্জনের ঘোষণা দেন।

 অবস্থান কর্মসূচি চলাকালে বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর অধ্যাপক লুৎফর রহমান ও সিন্ডিকেট সদস্য অধ্যাপক এম হুমায়ুন কবীর শিক্ষার্থীদের সঙ্গে কথা বলেন। জানতে চাইলে প্রক্টর বলেন, ‘আমি আন্দোলনরত শিক্ষার্থীদের সঙ্গে কথা বলেছি। শিক্ষকদেরকেও দ্রুত ফল প্রকাশের জন্য বলেছি।‘