Anudhyan Mass Communication and Journalism
University of Rajshahi
A practice news portal of Department of Mass Communication & Journalism of University of Rajshahi
শিরোনাম
পরীক্ষার সাত মাস পরেও ফল প্রকাশ না হওয়ার প্রতিবাদে অবস্থান কর্মসূচি পালন করেছে রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয় গণযোগাযোগ ও সাংবাদিকতা বিভাগের শিক্ষার্থীরা।গণযোগাযোগ ও সাংবাদিকতা বিভাগের শিক্ষাক্রম বিষয়ে আলোচনারাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের একাডেমিক নিউজলেটার বিদ্যাবার্তা’র দ্বিতীয় সংখ্যা প্রকাশিত হয়েছেতিস্তা নদীতে খনন ও বাঁধ নির্মাণের দাবি জানিয়েছে রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ে অধ্যয়নরত রংপুর বিভাগের শিক্ষার্থীরারাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের ২০১৯-২০ শিক্ষাবর্ষে স্নাতক (সম্মান) প্রথম বষের্র ভর্তি-পরীক্ষা আগামী ২০-২২ অক্টোবর অনুষ্ঠিত হবে

তিস্তা নদীতে খনন ও বাঁধ নির্মাণের দাবি

অনুধ্যান

প্রকাশিত : ০৮:১৩ পিএম, ২৫ জুলাই ২০১৯ বৃহস্পতিবার

তিস্তা নদীতে খনন ও বাঁধ নির্মাণের দাবিতে মানবন্ধন

তিস্তা নদীতে খনন ও বাঁধ নির্মাণের দাবিতে মানবন্ধন

আলী ইউনুস হৃদয়: তিস্তা নদীতে খনন ও বাঁধ নির্মাণের দাবি জানিয়েছে রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ে অধ্যয়নরত রংপুর বিভাগের শিক্ষার্থীরা। আজ বেলা ১১টায় কেন্দ্রীয় গ্রন্থাগারের সামনে আয়োজিত মানববন্ধন থেকে এই দাবি জানানো হয়।

 ‘তিস্তা নদীর খনন ও বাঁধ চাই’, ‘বন্ধ হবে আর্তনাদ, যদি হয় তিস্তায় বাঁধ’, ‘ত্রাণ নয়, বন্যা সমস্যার সমাধান চাই’, ‘তিস্তা নদীর স্থায়ী সমাধান চাই’,‘বন্যা থেকে মুক্তি চাই,তিস্তা নদীর খনন চাই’ ইত্যাদি স্লোগান সম্বলিত প্ল্যাকার্ড নিয়ে শিক্ষার্থীরা এসব দাবি তুলে ধরেন।

 মানববন্ধনে বক্তারা বলেন, তিস্তা এখন উত্তরবঙ্গের দুঃখ হয়ে গেছে। একদিকে বন্যার কারণে যেমন হাজার হাজার হেক্টর জমির ফসল যেমন নষ্ট হচ্ছে তেমনি খরা মৌসুমেও পানির অভাবের অন্ত থাকছে না। সভ্যতার শেকড় তিস্তা আশীর্বাদের পরিবর্তে অভিশাপ হচ্ছে। বন্যা কবলিত মানুষের দুর্দশার কথা ভাবছেন, দয়া করে একটু ভালোভাবেই ভাবুন,  তিস্তা নদীর কাজ করুন। প্রতিবছরেই বন্যা হয়। প্রতিবছরই আমাদের নেতারা ত্রাণ নিয়ে যায়। এটা স্থায়ী সমাধান না। ভারতের সাথে যৌথভাবে এর স্থায়ী সমাধান করতে হবে। নদী খনন ও বাঁধ নির্মাণ করতে হবে। তবেই আমাদের এই দুর্ভোগ কমবে।

 বক্তারা আরো বলেন, রংপুর বিভাগে পাঁচজন পূর্ণ মন্ত্রী থাকা সত্ত্বেও নদীর কাজ এখন না হলে আর কবে হবে? মাননীয় প্রধানমন্ত্রী তিস্তা নিয়ে ভাবেন। শুধুমাত্র ভারতের সাথে তিস্তা চুক্তির আশায় বসে না থেকে দেশের অভ্যন্তরে কোনো ব্যবস্থা নেয়া যায় কি না সে ব্যপারে আমাদের ভাবতে হবে। দেশীয় অর্থায়নে যদি পদ্মা সেতুর মতো বৃহত্তর প্রকল্প হাতে নেয়া যায় তবে তিস্তা খনন এবং বাঁধ নির্মাণ কঠিন কিছু নয়। একাজে এগোতে কঠিন মনে হলেও অসম্ভব কিছু হবে না। দীর্ঘমেয়াদি পদক্ষেপ নিয়ে নদী খনন ও বাঁধ নির্মাণ করতে হবে। নদী ভাঙনে নির্দিষ্ট কিছু পাইলিং এর ব্যবস্থা, বন্যা হলেই ত্রাণ আর বন্যা শেষে ক্ষুদ্র পরিসরে সংস্কার কাজের মধ্যেই থেমে থাকলে চলবে না। আমরা দীর্ঘমেয়াদী কাজ চাই।

 মার্কেটিং বিভাগের শিক্ষার্থী মাহফুজ মুন্নার সঞ্চালনায় মানববন্ধনে ইতিহাস বিভাগের সোহরাব হোসেন, গণযোগাযোগ ও সাংবাদিকতা বিভাগের খায়রুল ইসলাম, নৃবিজ্ঞান বিভাগের নয়ন মহন্ত, আইন বিভাগের সাদ্দাম হোসেন এবং পপুলেশন সায়েন্স এন্ড হিউম্যান রিসোর্স ডেভোলপমেন্ট বিভাগের ইমরান সাকিব প্রমুখ বক্তব্য দেন। এসময় বিশ্ববিদ্যালয়ের বিভিন্ন বিভাগে অধ্যয়নরত দুই শতাধিক শিক্ষার্থী উপস্থিত ছিলেন।